এবার ইউক্রেনকে ‘সন্ত্রাসী’ রাষ্ট্র আখ্যা দিলেন রুশ স্পিকার

Ayesha Siddika | আপডেট: ০৬ জুলাই ২০২২ - ০৩:৫৪:০৯ পিএম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : চলতি বছর ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ইউক্রেনে সামরিক অভিযান চালাচ্ছে রাশিয়া। রুশ আগ্রাসনে পূর্ব ইউরোপের এই দেশটি অনেকটাই বিপর্যস্ত। এমনকি ‘অযৌক্তিক’ এই আগ্রাসনের কারণে যুদ্ধাপরাধ এমনকি সন্ত্রাসবাদের তকমাও জুটেছে রাশিয়ার ভাগ্যে। মঙ্গলবার ইউক্রেনকে সন্ত্রাসী রাষ্ট্র হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন রুশ পার্লামেন্টের স্পিকার ব্যাচেস্লাভ ভোলোদিন। তার দাবি, ইউক্রেন ‘সন্ত্রাসী’ রাষ্ট্র হয়ে উঠেছে। খবর আলজাজিরা।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাশিয়ার পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ স্টেট ডুমার স্পিকার ব্যাচেস্লাভ ভোলোদিন আইনসভার পূর্ণাঙ্গ অধিবেশনে সদস্যদের বলেছেন, ইউক্রেন একটি ‘সন্ত্রাসী রাষ্ট্র’ হয়ে উঠেছে। স্টেট ডুমার ওয়েবসাইটে তার এই মন্তব্য প্রকাশ করা হয়েছে। ব্যাচেস্লাভকে উদ্ধৃত করে সেখানে আরও বলা হয়েছে, অপরাধী সরকার ব্যবস্থার’ প্রধান হিসেবে দায়িত্বপালন করছেন (ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির) জেলেনস্কি।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, ইউক্রেনে মস্কোর ‘বিশেষ সামরিক অভিযান’ শুরু করার পর থেকে রাশিয়ান কর্মকর্তারা তাদের প্রতিবেশী এই দেশটিকে রুশ-বিরোধী ফ্যাসিস্ট এবং ‘নব্য-নাৎসি’ দেশ হিসাবে চিত্রিত করতে বরাবরই চেষ্টা করে এসেছে। তবে মঙ্গলবারের আগপর্যন্ত ইউক্রেনকে সন্ত্রাসী রাষ্ট্র বলে কখনোই দাবি করেনি তারা। ইউক্রেন এবং পশ্চিমা দেশগুলো অবশ্য বলছে, কিয়েভের বিষয়ে মস্কোর এই ধরনের দাবি আসলে ভিত্তিহীন প্রচার। যা মূলত ইউক্রেনীয় ভূখণ্ড দখলের ন্যায্যতা দিতে ব্যবহৃত হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ভোরে ইউক্রেনে হামলা শুরু করে রাশিয়ান সৈন্যরা। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ইউরোপের প্রথম দেশ হিসেবে রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনী স্থল, আকাশ ও সমুদ্রপথে ইউক্রেনে এই হামলা শুরু করে। একসঙ্গে তিন দিক দিয়ে হওয়া এই হামলায় ইউক্রেনের বিভিন্ন শহরে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র পড়েছে বৃষ্টির মতো।

 

 

কিউটিভি/আয়শা/০৬ জুলাই ২০২২, খ্রিস্টাব্দ/বিকাল ৩:৪৫

▎সর্বশেষ

ad