ইমরান খানের সঙ্গে প্রেসিডেন্ট আলভির আলোচনা

Ayesha Siddika | আপডেট: ২৪ নভেম্বর ২০২২ - ০৮:২০:০২ পিএম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) বিকেলে পাঞ্জাব প্রদেশের রাজধানী লাহোরে পিটিআই প্রধানের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। বৈঠকে প্রেসিডেন্টকে আইন ও সংবিধান অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ইমরান। খবর ডনের। পাকিস্তানের নতুন সেনাপ্রধান (চিফ অব আর্মি স্টাফ) হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে লেফটেন্যান্ট জেনারেল আসিম মুনিরকে। পাক সেনাবাহিনীর শীর্ষ এই জেনারেল বর্তমানে সেনাবাহিনীর কুয়ার্টার মাস্টার জেনারেল হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। বিদায়ী সেনাপ্রধান কামার জাভেদ বাজওয়ার স্থলাভিষিক্ত হবেন মুনির। 

একই সঙ্গে লেফটেন্যান্ট জেনারেল সাহির শামশাদ মির্জাকে জয়েন্ট চিফ অব স্টাফ কমিটির চেয়ারম্যান (সিজেসিএসসি) হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। বিদায়ী চেয়ারম্যান নাদিম রেজার স্থানে বসবেন তিনি। সেনাবাহিনীর শীর্ষ দুই পদের নিয়োগে নিজের মনোনীতদের বিষয়ে প্রেসিডেন্ট আলভিকে অবহিত করেন প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ। প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে নিয়োগের সারসংক্ষেপ শোনার পরই লাহোরের উদ্দেশে যাত্রা করেন প্রেসিডেন্ট আলভি। চলতি মাসে লংমার্চে বন্দুকধারীর গুলিতে গুরুতর আহত হওয়ার পর থেকেই এই লাহোরেই অবস্থান করছেন পিটিআই প্রধান ইমরান খান।

ডনের প্রতিবেদন মতে, বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) বিকেলে লাহোরের পিটিআই প্রধানের জামান পার্কের বাসভবনে ইমরান খানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন প্রেসিডেন্ট। এ সময় সেখানে পিটিআই নেতা শাহ মাহমুদ কুরেশি, আসাদ ওমর ও ফাওয়াদ চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকের পর জামান পার্কের বাসভবনের বাইরে এক সংবাদ সম্মেলনে পিটিআই নেতা ফাওয়াদ চৌধুরী বলেন, প্রেসিডেন্ট আলভি ও ইমরান খান সেনাপ্রধান নিয়োগ নিয়ে কথা বলেছেন। এর আগে সেনাপ্রধান নিয়োগের ব্যাপারে এক বক্তব্যে ইমরান খান বলেন, তার দৃঢ় বিশ্বাস, পরবর্তী সেনাপ্রধান নিয়োগ চূড়ান্ত করার আগে বিষয়টি নিয়ে তার (ইমরানের) সঙ্গে আলোচনা করবেন প্রেসিডেন্ট আলভি। তার কথায়, ‘সেনাপ্রধান নিয়োগের ব্যাপারে প্রেসিডেন্ট ড. আরিফ আলভি নিশ্চিতভাবেই আমার সঙ্গে পরামর্শ করবেন।’

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) এক ঘোষণায় পাকিস্তানের তথ্যমন্ত্রী মরিয়ম আওরঙ্গজেব সেনাপ্রধান নিয়োগের বিষয়টি জানান। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ লেফটেন্যান্ট জেনারেল আসিম মুনিরকে সেনাপ্রধান ও লেফটেন্যান্ট জেনারেল সাহির শামশাদ মির্জাকে জয়েন্ট চিফ অব স্টাফ কমিটির চেয়ারম্যান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

পাক সেনাবাহিনীর এই দুই শীর্ষ পদের নিয়োগ চূড়ান্ত করবেন প্রেসিডেন্ট আরিফ আলভি। নিয়োগের বিষয়ে পাকিস্তানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী খাজা আসিফ বলেছেন, আইন ও সংবিধান অনুযায়ী এসব নিয়োগ দেয়া হয়েছে। প্রেসিডেন্ট আলভি এসব নিয়োগকে বিতর্কিত করবেন না বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি। 

 

 

কিউটিভি/আয়শা/২৪ নভেম্বর ২০২২,খ্রিস্টাব্দ/রাত ৮:১৯

▎সর্বশেষ

ad