আরও কমলো টাকার মান

superadmin | আপডেট: ২৯ জুন ২০২২ - ১২:১৩:২২ এএম

ডেস্কনিউজঃ ডলারের বিপরীতে আবারও ৫০ পয়সা কমেছে টাকার মান। এ নিয়ে গেল বছরে তৃতীয় বারের মতো টাকার মানের পরিবর্তন।

দেখা গেছে, মঙ্গলবার (২৮ জুন) আন্তঃব্যাংক মুদ্রাবাজারে এক ডলারের জন্য ৯৩ টাকা ৪৫ পয়সা খরচ করতে হয়েছে, যা দেশে ডলারের দামের সর্বোচ্চ রেকর্ড।

গতকাল সোমবার ডলারের দাম ছিল ৯২ টাকা ৯৫ পয়সা। পরদিন যা আরও ৫০ পয়সা কমেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক সিরাজুল ইসলাম।

সিরাজুল ইসলাম বলেন, মঙ্গলবার ব্যাংকগুলোর চাহিদা অনুযায়ী কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে ৪ কোটি ২০ লাখ ডলার বিক্রি করা হয়েছে। এদিন দাম নির্ধারিত হয়েছে ৯৩ টাকা ৪৫ পয়সা। এটাই আন্তঃব্যাংক দর।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্যমতে, গত এক মাসের ব্যবধানে ডলারের বিপরীতে টাকার মান কমেছে ৫ শতাংশ। আর এক বছরের ব্যবধানে কমেছে ১০ দশমিক ২০ শতাংশ। গত বছরের ৩০ জুন প্রতি ডলারের জন্য ৮৪ টাকা খরচ করতে হয়েছে। এক মাস আগে ৩০ মে লেগেছিল ৮৯ টাকা।

এর আগে, গত মে মাসে ২০২২ প্রতি মার্কিন ডলারের বিনিময়মূল্য ৪০ পয়সা বাড়িয়ে ৮৮ টাকা নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। একদিন আগেও প্রতি ডলার কিনতে খরচ হয়েছিল ৮৭ টাকা ৫০ পয়সা। এ সময় ৮০ পয়সা বাড়িয়ে ৮৭ টাকা ৫০ পয়সা নির্ধারণ করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এরপর বাড়ানো হয় আরও ১০ পয়সা।

এ ছাড়া বছরের শুরু থেকে শুরু করে কমতেই আছে এই টাকার মান। জানুয়ারির শুরুতে প্রতি ডলারে বিনিময় মূল্য ২০ পয়সা বাড়িয়ে ৮৬ টাকা, ২৩ মার্চে ২০ পয়সা বাড়িয়ে ৮৬ টাকা ২০ পয়সা, ২৭ এপ্রিল ২৫ পয়সা বাড়িয়ে ৮৬ টাকা ৪৫ পয়সা এবং সর্বশেষ ৯ মে ২৫ পয়সা বাড়িয়ে ৮৬ টাকা ৭০ পয়সা নির্ধারণ করা হয়েছিল।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র সিরাজুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, রপ্তানি আয়ের তুলনায় আমদানি বেশি। বাজার পরিস্থিতি বিবেচনা করে প্রতি মার্কিন ডলারের দাম ৮৭ টাকা ৫০ পয়সা নির্ধারণ করা হয়েছে।

গত বছরের মে মাসে প্রতি ডলার বিক্রি হয়েছিল ৮৪ টাকা ৮০ পয়সা দরে। ওই সময়ে ডলারের দাম বাড়ল এক টাকা ৯০ পয়সা।

বিপুল/২৮.০৬.২০২২/ রাত ১১.৫৫

▎সর্বশেষ

ad