ভারতে বাংলাদেশী তরুণীকে গণধর্ষণে ৯ স্বদেশীর কারাদণ্ড

superadmin | আপডেট: ২১ মে ২০২২ - ০৭:৩৬:৫৯ পিএম

ডেস্কনিউজঃব্যাঙ্গালুরুতে স্বদেশী এক তরুণীকে গণধর্ষণের ঘটনায় ৯ বাংলাদেশীকে কারাদণ্ড দিয়েছে ভারতের একটি আদালত। এর মধ্যে সাতজনকে দেয়া হয়েছে যাবজ্জীবন।

গত বছরের মে মাসে আলোচিত এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনার ভিডিও প্রকাশের পর তা ভারতে ভাইরাল হয়ে যায়। বাংলাদেশেও এ নিয়ে ব্যাপক তোলপাড় হয়।

শুক্রবার ব্যাঙ্গালুরুর বিশেষ আদালত-৫৪ এ রায় ঘোষণা করে।

যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্তরা হলেন- চাঁন মিয়া, মো: রিফাকদুল ইসলাম, মো: আলামিন হোসেন, রাকিবুল ইসলাম, মো: বাবু শেখ, মো: ডালিম ও আজিম হোসেন।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত তানিয়া খান নামে এক নারীকে ২০ বছরের কারাদণ্ড এবং মো: জামাল নামে আরেকজনকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

এছাড়া প্রবাসী আইনে অপর দুজনকে ৯ মাসের সাধারণ কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। আসামিদের একজনকে খালাস দেয়া হয়েছে।

গত বছরের মে মাসে ওই নারীকে মারাত্মকভাবে যৌন নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল হলে ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কিরেন রিজ্জু টুইট করে পুলিশকে অভিযুক্তদের গ্রেফতারের আহ্বান জানান। পরে ব্যাঙ্গালুরু পুলিশ জানতে পারে ঘটনাটি রামমূর্তি নগরের কনাকা নগর ঘটেছে। পরে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্তদের গ্রেফতার করে।

পুলিশ ১২ ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে, যাদের মধ্যে ১১ জনই ছিল অবৈধ অনুপ্রবেশকারী।

কর্ণাটক সরকার পরে ঘটনার বিচার প্রক্রিয়ার জন্য একজন বিশেষ পাবলিক প্রসিকিউটর নিয়োগ দেয়। এবং একটি বিশেষ বিচার মনিটরিং টিম গঠন করে দেয়।

সব মিলিয়ে ৪৪ জন সাক্ষির সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে বিচার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়। প্রক্রিয়া শুরুর তিন মাসের কম সময়ে বিচারপ্রক্রিয়া শেষ হয়ে যায়।

সূত্র : ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

বিপুল/২১.০৫.২০২২ খ্রিস্টাব্দ/ সন্ধ্যা ৭.১৫

▎সর্বশেষ

ad