ডিআইজি কার্যালয়ের মোটরসাইকেল চুরি, ১৪ পুলিশ বরখাস্ত

superadmin | আপডেট: ০৫ জুলাই ২০২২ - ০৭:৩৬:০৬ পিএম

ডেস্কনিউজঃ বরিশালে ডিআইজি কার্যালয় থেকে মোটরসাইকেল চুরির ঘটনায় ১৪ পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। গৌরনদী ও উজিরপুর থানার ওই ১৪ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে রাতের টহল ডিউটি পালনে গাফিলতির অভিযোগ আনা হয়েছে। পাশাপাশি তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

রবিবার ( ০৩ জুলাই) রেঞ্জ ডিআইজি কার্যালয় থেকে পুলিশ সুপার কার্যালয়ে প্রেরিত এক আদেশে পুলিশ সদস্যদেরকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

ডিআইজি আকতারুজ্জামান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘সাময়িক বরখস্তকৃত ১৪ পুলিশ সদস্যকে বিভিন্ন সময়ে রাত্রকালীন বরিশাল-ঢকা মহাসড়কে উজিরপুর উপজেলার এবং গৌরনদী উপজেলা অংশের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তারা সঠিকভাবে তাদের দায়িত্ব পালন না করায় সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। পাশাপাশি বিভাগীয় মামলা দায়েরের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ’

বরখাস্ত হওয়া ওই ১৪ পুলিশ সদস্য হলেন- উজিরপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. জিয়াউল হায়দার, কনস্টেবল রবিউল ইসলাম, সোহেল রানা ও ইমরান হোসেন এবং গৌরনদী থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) ছগির হোসেন, গাফফার হোসেন, সহকারী উপ পরিদর্শক (এএসআই) সোহরাব হোসেন, কনস্টেবল কামাল হোসেন, ইকবাল হোসেন, মুরসালিন মিয়া, অমৃত লাল, নয়ন মিয়া, মেহেদী হাসান ও গাড়ী চালক (কনস্টেবল) আব্দুল হক রানা।

রেঞ্জ ডিআইজি কার্যালয় থেকে পুলিশ সুপার কার্যালয়ে প্রেরিত আদেশ সূত্রে জানা গেছে, গত ২ জুন বৃহস্পতিবার রাত ৩টা ২০ মিনিটে বিভাগীয় সদর দপ্তর কম্পাউন্ডের মধ্যে থাকা গ্যারেজ থেকে ইয়ামাহা এফজেড ভার্সন-২ মডেলের একটি মোটরসাইকেল চুরি হয়।

পরবর্তীতে বিভাগীয় সদর দপ্তর কম্পাউন্ডসহ ঢাকা-বরিশাল হাইওয়েতে স্থাপিত সিসি ক্যামেরার ফুটেজ পর্যালোচনা করে দেখা যায়, অজ্ঞাতনামা এক চোর খালি পায়ে, চাবিবিহীন অবস্থায় মোটরসাইকেলটি নিয়ে যায়। চোর মোটরসাইকেলটি নিয়ে ঢাকা-বরিশাল হাইওয়ে হয়ে প্রথমে বরিশাল জেলার উজিরপুর ও গৌরনদী থানা এলাকার প্রবেশকালীন চেকপোস্ট পার হয়। এরপর ফরিদপুরের ভাঙ্গা থানার দিকে চলে যায়।

গৌরনদী ও উজিরপুর থানার সাময়িক বরখাস্ত হওয়া পুলিশ সদস্যরা সেই রাতে থানার ডিউটি বণ্টন খাতায় ওই সকল এলাকায় মোবাইল ডিউটি থাকলেও বস্তবে তারা মহাসড়কের ডিউটি দেয়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, তারা যদি সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করতেন তাহলে চোরসহ মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করা সম্ভব হতো। মহাসড়কের রাত্রীকালীন দেওয়া ডিউটি সঠিকভাবে পালন না করায় চোর পুলিশের চেকপোস্টসহ সকল স্থান নিবিঘ্নে অতিক্রম করতে সক্ষম হয়। তাই রাত্রীকালীন ডিউটি পালনের অবহেলার কারণে তাদের সায়িকভাবে বরখস্ত করা হয়। পাশিপাশি তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দায়ের জন্য নিদের্শ দেওয়া হয়।

বিপুল/ ০৫.০৭.২০২২/ সন্ধ্যা ৭.৩১

▎সর্বশেষ

ad