গরমে পান্তা ভাত খাবেন নাকি খাবেন না?

Ayesha Siddika | আপডেট: ২৩ এপ্রিল ২০২৪ - ০৪:৩০:৫২ পিএম

লাইফ ষ্টাইল ডেস্ক : চলছে তীব্র গরম। বৈশাখের শুরু থেকেই দিন দিন বাড়ছে তাপমাত্রা। তাপদাহে পুড়ছে সারাদেশ। এমন অবস্থায় সুস্থ থাকাটাই হল সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। তীব্র গরমের এ সময় প্রচুর পরিমাণ পানি খাওয়ার পাশাপাশি খাওয়া-দাওয়া নিয়েও সচেতন থাকতে হবে। শরীর ঠান্ডা রাখার জন্য আমরা নানা ধরনের শরবত বা পানীয় খাই। অনেকে আবার ফলের রস পছন্দ করেন।

তবে এই সময় অনেকেই গরম ভাতের বদলে পান্তা ভাত খেতে পছন্দ করেন। এমনকি গরমে অনেকেরই প্রিয় খাবার পান্তা ভাত। কিন্তু এই গরমে পান্তা ভাত খাওয়া কী শরীরের জন্য ঠিক?

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই গরমে নিয়ম করে পান্তা ভাত খেলে হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি এড়ানো সম্ভব। শরীরে ঠান্ডা রাখার পাশাপাশি একাধিক রোগের ঝুঁকি কমায় পান্তা ভাত।

গরমে পান্তার উপকারিতা

পান্তা ভাতা ফার্ম‌েন্টেশনের মাধ্যমে তৈরি করা হয়। কেউ কেউ রাতে ভাত রান্না করে তাতে পানি ঢেলে রাখেন। পরদিন সকালে সেই ভাত খান। আবার অনেকে সকালের তৈরি গরম ভাতে পানি ঢেলে দুপুরে বা রাতে খেয়ে থাকেন। এই ফার্ম‌েন্টেশনের ফলে পান্তা ভাতের পুষ্টিগুণ বেড়ে যায়।

এই গরমে পান্তা ভাত খেলে কী কী উপকারিতা মিলবে তা এখানে দেওয়া হল,

১. ফার্মেন্টেশনের(গাঁজন) ফলে পান্তা ভাতে ভিটামিন বি টুয়েলভ বেড়ে যায়। এটি ক্লান্তি দূর করে। কিছু ক্ষেত্রে অনিদ্রা দূর করতেও সাহায্য করে।

২. বিজ্ঞানীদের মতে পান্তাভাত পিএইচ ব্যালেন্স করতে সাহায্য করে যা গ্যাসের সমস্যা কমায়। এটি অনেক ক্ষেত্রে আলসার রোগীদেরও সুফল দেয়।

৩. পান্তাভাতে ফারমেন্টেশনের ফলে ল্যাকটিক অ্যাসিড তৈরি হয়। এটি বুকের দুধ খাওয়ানো মায়েদের দুগ্ধ উৎপাদনে সাহায্য করে।

৪. এটি রক্তচাপের রোগীদের ক্ষেত্রে বেশ কার্যকরী। সাধারণ ভাতের তুলনায় পান্তাভাতে সোডিয়ামের পরিমাণ কম। অন্যদিকে পটাশিয়ামের পরিমাণ যথেষ্ট বেশি।

৫. ফারমেন্টেশনের কারণে পান্তায় কার্বোহাইড্রেট এবং ফ্যাটের পরিমাণ অনেকটাই কমে যায়। তাই অনেক ক্ষেত্রে ওয়েট লসে কার্যকরী হয়।তবে অবশ্যই সেটা সীমিত পরিমাণে খেতে হবে।

৬. পান্তা ভাতকে বলা হয় ন্যাচারাল কুলার। শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। এটি ‘বডি রিহাইড্রেটিং ফুড’ হিসেবে পরিচিত। যা গরমে শরীর ঠান্ডা রাখতে দারুণ কাজের।

৭. পান্তা ভাতকে ‘বিউটি সিক্রেট অফ এশিয়া’ বলা হয়। কারণ এটি কোলাজেন তৈরিতে সাহায্য করে। এটি ত্বকের ইলাস্টিসিটি বৃদ্ধি করে। ফলে ত্বক মসৃণ, টানটান ও উজ্জ্বল দেখায়।

৮. পান্তায় কিছু রেজিস্ট্যান্স স্টার্চ তৈরি হয়। এটি অনেক ক্ষেত্রে সিরাম কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে।

৯. উপকারি ব্যাকটেরিয়া প্রোবায়োটিক্সে ভরপুর পান্তা ভাত। এটি হজমশক্তি রক্ষায় সাহায্য করে। সেই সঙ্গে পান্তা সারাদিন কাজ করার জন্য শক্তি যোগাতে সাহায্য করে।

 

 

কিউটিভি/আয়শা/২৩ এপ্রিল ২০২৪,/বিকাল ৪:৩০

▎সর্বশেষ

ad