‘এই সম্মান পেয়ে আমি গর্বিত এবং আপ্লুত’

বিনোদন ডেস্ক : চলচ্চিত্রে অবদান রাখার জন্য প্রখ্যাত চিত্রনায়িকা কবরী পেলেন ‘রাজ রাজ্জাক লাইফটাইম অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড’। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় কলকাতায় বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল শর্ট ফিল্ম উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। কলকাতার একটি অভিজাত হোটেলে এই উৎসবের আয়োজন করে বেঙ্গল ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন চেম্বার অব কমার্স (বিএফটিসিসি)। এ সময় কবরীকে এই সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়।

সম্মাননা স্মারক গ্রহণ করার পর কবরী বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের সময় আমি কলকাতায় ছিলাম। এই কলকাতাকে আমার দারুণ লাগে। এখনো আমার অন্যতম প্রিয় শহর এই কলকাতা। সময় পেলে ছুটে আসি এই প্রিয় শহরে। এই সম্মান পেয়ে আমি গর্বিত এবং আপ্লুত।’

এ ছাড়া হীরালাল সেন পদক পান কলকাতার সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়। ‘দেবকী কুমার বোস লাইফটাইম পদক’ দেওয়া হয় পরিচালক গৌতম ঘোষকে, ‘বিএন সরকার পদক’ দেওয়া হয় অরোরা ফিল্মসকে। আর বিশেষ সম্মান ‘ইনফরমেশন কমিউনিকেশন এন্টারটেইনমেন্ট পদক’ দেওয়া হয় বাংলাদেশের আহমেদ আকবর সোবহানকে।
 

প্রদীপ জ্বালিয়ে এই অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশের চিত্রনায়ক আলমগীর, ভারতের বাংলা সিনেমার জনপ্রিয় নায়ক প্রসেনজিৎ, অভিনেত্রী সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়, অভিনেতা ব্রাত্য বসু, সুরকার ও সংগীত পরিচালক দেবজ্যোতি মিশ্র, চলচ্চিত্র পরিচালক শতরূপা সান্যাল, বিএফটিসিসির সভাপতি ফেরদৌসাল হাসান প্রমুখ।

বর্ণিল অভিনয় জীবনে অসংখ্য মানুষের হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন চিত্রনায়িকা কবরী। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের মিষ্টি মেয়ে হিসেবে পরিচিত তিনি। ১৯৬৪ সালে সুভাষ দত্তের পরিচালনায় ‘সুতরাং’ সিনেমায় নায়িকা হিসেবে অভিনয় ক্যারিয়ার শুরু করেন। এরপর অভিনয় করেছেন ‘হীরামন’, ‘ময়নামতি’, ‘চোরাবালি’, ‘পারুলের সংসার’, ‘বিনিময়’, ‘আগন্তুক’-এর মতো অসংখ্য দর্শকপ্রিয় সিনেমা। বাংলাদেশের পাশাপাশি ওপার বাংলায়ও বেশ জনপ্রিয় কবরী।

কিউটিভি/রেশমা/২১শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং/বিকাল ৫:০৮

শেয়ার করুন