১৫ ডলারের আংটির ৩৩ বছর পর মূল্য ৪,৫৫,০০০ ডলার!

ডেস্ক নিউজ : ৩৩ বছর আগে ১৫ ডলারের বিনিময়ে পুরানো একটি আংটি কিনেছিলেন লন্ডনবাসী এক তরুণী। তিন দশক পার করে পরীক্ষাকরে জানা গেছে, খাঁটি ২৬.২৭ ক্যারাটের বিশাল আকৃতির একটি হীরা বসানো রয়েছে সেই আংটির মাথায়। এখন তার মূল্য ৪,৫৫,০০০ ডলার অর্থাৎ প্রায় ৩,২৩,৮৪,৮৫২ টাকা।জানা যায়, সেই সময় সেই তরুণী ওই আংটি কিনেছিলেন শুধুমাত্র শখের বশে। আংটির উপরে বড়সড় পাথরটি যে নকল হীরা, তা তার আকার আর জৌলুসের অভাব দেখেই বোঝা গিয়েছিল। তিন দশক পার করে সেই আংটি দেখে এক গয়না ব্যবসায়ী সন্দেহ প্রকাশ করে জানান, পাথরটি হয়তো নকল নয়। এর মূল্য ১৫ ডলারের তুলনায় বেশি হতে পারে। 

এই কথা শুনে পরীক্ষাগারে আংটির পাথর যাচাই করতে দেন ওই মহিলা। পরীক্ষাগারে তার আংটি পরখ করে চমকে ওঠেন বিশেষজ্ঞরা। কাচ নয়, খাঁটি ২৬.২৭ ক্যারাটের বিশাল আকৃতির হিরে বসানো রয়েছে আংটির মাথায়। খবর পেয়ে ছুটে এসে রিপোর্ট পড়ে চোখ ছানাবড়া আংটির মালিকেরও। 

আংটিটি আপাতত বিশ্বখ্যাত নিলাম সংস্থা সদবি’র হেফাজতে রাখা হয়েছে। জানা গেছে, আগামী ৭ জুন সেটি নিলামে ওঠার কথা। বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, আংটিটি তৈরি হয়েছিল আঠারো শতকে। সেই সময় হীরার শরীরে বেশি খাঁজ কাটার রেওয়াজ ছিল না। ফলে তার মধ্যে দিয়ে আলোকরশ্মির বিচ্ছুরণ ও প্রতিফলনের মাত্রাও কম হত। এযুগের কারিগররা তার চেয়ে অনেক বেশি পলা কাটেন হিরের গায়ে। এই কারণে প্রথম দর্শনে আংটির পাথরকে নকল হীরা ভেবেছিলেন বিক্রেতা ও ক্রেতা দু’জনই।

কিউটিভি/অনিমা/১১ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং/দুপুর ১:৪৮

শেয়ার করুন