মনিরামপুরে ঋনের হাতাশায় ভূগে গৃহবধুর আত্মহত্যা

স্টাফ রিপোর্টার,মনিরামপুর(যশোর) : যশোরের মনিরামপুরে ঋনের হাতাশায় ভূগে শিলা বৈদ্য নামে এক গৃহবধু গলায় শাড়ি পেচিয়ে আত্মহত্যা করেছে। পুলিশ গৃহবধুর লাশ উদ্ধারের পর যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালের মর্গ থেকে ময়না তদন্ত শেষে বুধবার দুপুরে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করেন। শিলা বৈদ্য উপজেলার হরিদাসকাটি ইউনিয়নের কুচলীয়া গ্রামের অরুন বৈদ্যের স্ত্রী। এ ব্যাপারে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে।

মনিরামপুর থানার এসআই দেবাশীষ মন্ডল জানান, শিলা বৈদ্যের স্বামী ঢাকায় একটি কোচিং সেন্টারে শিক্ষকতা করেন। শিলা বৈদ্য দুই মেয়েকে নিয়ে কুচলীয়া গ্রামের বাড়িতে বসবাস করতেন। স্বজনদের দাবি তার সংসারে বেশ আর্থিক অনটন ছিল। ফলে শিলা এলাকার বেশ কয়েকটি এনজিও থেকে প্রায় দুই লাখটাকা ঋন নেয়। এছাড়া পারিবারিক বিভিন্ন বিষয়াদী নিয়ে শিলা বৈদ্য বেশ হাতাশায় ভূগছিলেন। মঙ্গলবার ছিল ঋনের কিস্তি পরিশোধের তারিখ। এ নিয়ে সে বেশ দু:শ্চিন্তায় পড়ে। সোমবার রাতে দুই মেয়েকে ছেড়ে সে পৃথক কক্ষে ঘুমাতে যান। সকাল বেলা তার কোন সাড়া না পেয়ে আশপাশের লোকজন এসে দরজা ভেঙ্গে ঘরের আড়া থেকে শিলার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে।খবর পেয়ে পুলিশ মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে লাশ উদ্ধার করে। বুধবার যশোর ২৫০ শয্যা হাসাপাতালের মর্গ থেকে ময়না তদন্তের পর পুলিশ দুপুরে শিলা বৈদ্যের স্বজনদের কাছে লাশ হস্তান্তর করে। হরিদাসকাটি ইউপি চেয়ারম্যান বিপদ ভঞ্জন পাড়ে জানান, শিলার আত্মহত্যার খবর তিনি শুনেছেন। তবে কি কারনে আত্মহত্যা করেছে তা তিনি জানেনন। ওসি(তদন্ত) শিকদার মতিয়ার জানান, এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে।

 

 

কিউটিভি/আয়শা/৮ই জানুয়ারি, ২০২০ ইং /সন্ধ্যা ৬:৩৮

শেয়ার করুন