শাকিবের সঙ্গে হাতাহাতির মাশুল দিচ্ছেন শামীম

বিনোদন ডেস্ক : ‘শুটিং করার সময় শাকিব খানের সঙ্গে আমার হাতাহাতি হয়। ব্যক্তিগত জেলাসি থেকে শাকিব খান অন্যায়ভাবে আমার সদস্য পদ বাতিল করেন। শিল্পী সমিতির বর্তমান কমিটি নয়, শাকিব-অমিত প্যানেল অন্যায়ভাবে আমার সদস্যপদ বাতিল করেছিল’—কথাগুলো বলেন ফাইট ডিরেক্টর শামীম।

আগামী ২৫ অক্টোবর শিল্পী সমিতির নির্বাচন। এবারের ভোটার তালিকায় তার নাম পুনরায় সংযোজন করা হয়নি। এ ব্যাপারে গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানের কাছে উকিল নোটিশ নিয়ে হাজির হন তিনি। এ সময় কথাগুলো বলেন শামীম।

শামীম বলেন, ‘গত নির্বাচনে আমি জায়েদ খানের পক্ষে নির্বাচন করেছিলাম। নির্বাচনের রাতে শাকিব খান নির্বাচনী বুথে প্রবেশ করার সময় আমি প্রতিবাদ করি। তখন শিল্পীদের তোপের মুখে শাকিব খান এফডিসি ছাড়তে বাধ্য হন। সকালে দেখি জায়েদ এক নম্বর, আমি দুই নম্বর আসামি। আমাদের নামে মামলা করা হয়েছে। আর কীভাবে আমার সদস্য পদ বাতিল করা হয়েছে বিষয়টি জানেন না জায়েদ খান। আমি মনে করেছিলাম, বিষয়টি সুরাহা করে তারা আবারো আমার ভোটাধিকার ফিরিয়ে দেবেন। কিন্তু শিল্পী সমিতির নির্বাচন উপলক্ষে প্রকাশিত ভোটার তালিকায় আমার নাম না দেখে বর্তমান সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে উকিল নোটিশ নিয়ে এসেছি।’

উকিল নোটিশ প্রসঙ্গে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান বলেন, ‘শেখ শামীম ভাই অনেক সিনিয়র একজন ফাইট ডিরেক্টর। আমি নিজেও তার ডিরেকশনে কাজ করেছি। তার সদস্য পদ ফিরিয়ে দেওয়া আমাদের দায়িত্ব ছিল। তবে তিনি গত দুই বছরে আমাদের কাছে আসেননি, যে কারণে সদস্য পদ ফিরিয়ে দেওয়া হয়নি। শাকিব খান-অমিত হাসান প্যানেল যখন শিল্পী সমিতির দায়িত্বে ছিল তখন তার সদস্য পদ বাতিল করা হয়।’

তিনি আরো বলেন, ‘বিষয়টি শামীম ভাইকে বুঝিয়ে বলেছি। তিনি তা বুঝতে পেরে উকিল নোটিশ ফিরিয়ে নিয়ে গেছেন। অনেকেই বলছেন, আমরা শামীমের সদস্য পদ বাতিল করেছি। বিষয়টি দুঃখজনক। না জেনে এই ধরনের খবর ছড়ানো হচ্ছে।’

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে শোনা যায়, এই নির্বাচনে মিশা-জায়েদ ও মৌসুমী-তায়েব প্যানেল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। দুই প্যানেল থেকে মনোনয়নপত্র কিনলেও শেষ পর্যন্ত মৌসুমী-তায়েব প্যানেল ভেস্তে যায়। সর্বশেষ মৌসুমী স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে লড়ছেন। এই নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় তিনজন বিজয়ী হয়েছেন। তারা হলেন—সাংগঠনিক সম্পাদক পদে সুব্রত, দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক পদে জ্যাকি আলমগীর ও কোষাধ্যক্ষ পদে ফরহাদ।

কিউটিভি/রেশমা/৮ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং/বিকাল ৫:৫৯

শেয়ার করুন