ফের বিতর্কে নুসরাত

বিনোদন ডেস্ক : চলতি বছর দীর্ঘ দিনের প্রেমিক নিখিল জৈনর সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন নুসরাত জাহান। বিয়ের পর স্বামীর সঙ্গে প্রথম দুর্গাপূজা উদযাপন করছেন। শাখা-সিঁদুর পরে অষ্টমীর দিন নিখিল জৈনর সঙ্গে মন্দিরে গিয়ে অঞ্জলি দিয়েছেন তিনি। এ সময় স্বামীর ঢাক বাজানোর তালে নাচতেও দেখা যায় তাকে।

একজন মুসলিম হয়েও মন্দিরে গিয়ে পূজা দেওয়ার বিষয় নিয়ে বিতর্কের মুখে পড়েছেন নুসরাত জাহান। পূজামণ্ডপে নুসরাতের বিভিন্ন স্থিরচিত্র, ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমেও প্রকাশিত হয়েছে। এসব ছবি ঘিরে অন্তর্জালে শুরু হয়েছে ইতিবাচক ও নেতিবাচক আলোচনা। 

ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দের মুফতি আসাদ কাশমী বলেন, ‘এটা নতুন কিছু নয়। তিনি হিন্দু দেবতাকে পূজা দিচ্ছেন, যদিও ইসলামের অনুসারীদের প্রতি নির্দেশ রয়েছে একমাত্র আল্লাহ ছাড়া অন্য কারো উপাসনা করা যাবে না। তিনি যা করেছেন তা হারাম। নুসরাত তার ধর্মের বাইরে বিয়ে করেছেন। তার নাম ও ধর্ম পরিবর্তন করা উচিৎ। যিনি মুসলিম নাম রেখে ইসলামের অমর্যাদা করেন এমন মানুষ ইসলামের প্রয়োজন নেই।’

মানুষ নানা বিতর্কের জন্ম দিলেও নুসরাত তার ভাবনায় অটল। তার ভাষায়, ‘সব ধর্মের প্রতি সম্প্রীতি দেখানোর জন্য নিজের পদ্ধতি রয়েছে। আমার জন্ম ও বেড়ে ওঠা এই বাংলায়। আমি মনে করি, আমার সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য অনুসরণ করার জন্য সঠিক পথেই আছি। এখানে আমরা সমস্ত ধর্মীয় উৎসব পালন করে থাকি।’

এবারই প্রথম নয়, বিয়ের পর সিঁদুর পরেও বিতর্কের মুখে পড়েছিলেন নব নির্বাচিত সাংসদ নুসরাত। তখন নিউজএইট্টিনকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে নুসরাত জাহান বলেছিলেন, ‘আমার সিঁথিতে সিঁদুর দেখে অনেকে প্রশ্ন করেছেন— আমি কি হিন্দুকে বিয়ে করে হিন্দু হয়ে গেলাম? আমার তো মনে হয়, কোন ধর্ম অনুসরণ করব, সেই সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার সবার রয়েছে। আমি জন্মসূত্রে ইসলাম ধর্মাবলম্বী, সেটাই অনুসরণ করছি। কিন্তু সব ধর্ম এবং তার নিয়মের প্রতি শ্রদ্ধা রয়েছে। আমি এবং আমার স্বামী আমাদের ধর্ম পালন করছি। আমার তো মনে হয় এটাই স্বাভাবিক।’

কিউটিভি/রেশমা/৮ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং/বিকাল ৫:২৭

শেয়ার করুন