একজন মোল্লা আবু কাউসার : ঐতিহ্যময় রাজনৈতিক নেতৃত্বের ধারক

 

বিশেষ সংবাদদাতাঃ কৈশোর থেকে তারুণ্য, এর পরে সমগ্র যৌবনে যিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ, উদ্যেশ্য, লক্ষ্য, স্বপ্ন বাস্তবায়ন করার জন্যে নিজের জীবনকে বাজি রেখে আন্দোলন সংগ্রাম লড়াইয়ে ছিলেন সাহসী একজন মুজিব সৈনিক তিনি আজকের মোল্লা আবু কাউসার, আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগ এর কেন্দ্রীয় সংগ্রামী সভাপতি।

মোল্লা আবু কাউসার তার অক্লান্ত পরিশ্রমের মাধ্যমে সভাপতি হিসেবে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগকে শক্তিশালী সংগঠন হিসেবে গড়ে তুলেছেন।
রাজনীতির পাশাপাশী সর্বদা জনগনের পাশে থাকার চেষ্টা করেন। মানুষের বিপদে আপদে এগিয়ে আসেন যে কোন পরিস্থিতিতে।

রাজনৈতিক অঙ্গনে তাকে একজন ক্লীন ইমেজের মানুষ হিসেবেই সবাই চিনে।

তৃণমূল থেকে আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে আসা এ নেতা ছিলেন বাংলাদেশ আইন সমিতির সাবেক সভাপতি। মেধাবী এ ছাত্রনেতা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসুর নির্বাচিত সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদকও ছিলেন। সৎ পরিচ্ছন্ন কর্মীবান্ধব নির্লোভ জননেতা হিসেবে তিনি সর্বমহলে পরিচিত।

প্রাইমারি স্কুল থেকে জয় বাংলার স্লোগান দিয়ে বড় হয়েছেন মোল্লা আবু কাউসার। স্কুলে সিনিয়রদের সঙ্গে স্লোগান দিয়েছেন। এমনকি স্লোগান দিতে দিতে এক গ্রাম থেকে আরেক গ্রামে, এক স্কুল থেকে আরেক স্কুলে গিয়েছেন। এভাবেই তার ছাত্র রাজনীতির হাতেখড়ি। এরপর মাধ্যমিক স্কুল ও কলেজ জীবনেও ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন। তারপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগে ১৯৭৯-৮০ সেশনে ভর্তি হয়ে জহুরুল হক হলে ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে সরাসরি জড়িয়ে পড়েন। সেখান থেকে পদ-পদবি। ভর্তির এক বছর পরে তিনি ১৯৮১-৮২ সেশনে হল সংসদের সমাজকল্যাণ সম্পাদক এবং ১৯৮৩-৮৪ সেশনে ছাত্রলীগের জহুরুল হক হল শাখার সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ১৯৮২ সালে দেশে সামরিক শাসন জারি হলে সামরিক শাসনের বিরোধিতা করে তার নেতৃত্বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জহুরুল হক হল থেকে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রথম মিছিল বের হয়। তিনি ১৯৮৯-৯০ সেশনে ছাত্র-সংগ্রাম পরিষদের ব্যানারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্রসংসদের (ডাকসু) সমাজসেবা সম্পাদক নির্বাচিত হন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি শুধু বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নেতাই ছিলেন না। তিনি সকল ছাত্র সংগঠনের নেতা কর্মী ও সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের সঙ্গে মিশতেন আপন মানুষ হয়ে। যে কারো বিপদে পাশে দাঁড়াতেন দলীয় দৃষ্টিভঙ্গির উর্দ্ধে।

মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে যে দেশের জন্ম হয়েছে, সেই দেশে বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন ২০২১, ২০৪১ ও ২১০০ এর বাস্তবায়ন দেখতে চান মোল্লা কাউসার। আর দেখতে চান, উন্নত বিশ্বের কাতারে জঙ্গিমুক্ত, সন্ত্রাসমুক্ত ও দুর্নীতিমুক্ত সোনার বাংলাদেশ।

 

অনিমা/৬ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং/দুপুর ১২:১৭

শেয়ার করুন