দেশকে টুকরা টুকরা করছে ওরা : কংগ্রেস নেতা গোলাম নবি

ডেস্কনিউজঃ জম্মু-কাশ্মীরের সংবিধান প্রদত্ত বিশেষ অধিকার বাতিল করেছে কেন্দ্র। এর বদলে উপত্যকাকে দুটি কেন্দ্র শাসিত আঞ্চলে ভাগ করার প্রস্তাব দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। একটি জম্মু কাশ্মীর, অপরটি লাদাখ। কেন্দ্রের এই পদক্ষেপের প্রবল বিরোধিতা করেছে কংগ্রেস।

সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এক প্রতিবেদনে জানায়, রাজ্যকে টুকরা টুকরা করে উপত্যকায় সন্ত্রাসের পরিবেশ রোখা বা অনুপ্রবেশ বন্ধ করা যাবে না বলে মনে করেন রাজ্যসভায় কংগ্রেসের দলনেতা গোলাম নবি আজাদ। সংসদে কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের পর সোমবার কংগ্রেসের এই নেতা মনে করেন, বিজেপির ভৌগলিক বা ঐতিহাসিক ধারণা নেই। ওরা ভোটের জন্য জম্মু-কাশ্মীরকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে।

নবি বলেন, বিজেপি কেবল ৩৭০ বা ৩৫-এ ধারা বিলোপ করেনি, বদলে পুরো রাজ্যকে বিভক্ত করেছে। এই সরকার পুরো দেশকে অচল করে দিচ্ছে। সরকার জম্মু-কাশ্মীরকে পুনর্গঠন করতে রাজ্যসভায় চারটি বিলের প্রস্তাবের কথা বলেছিল। যদিও দেখা যাচ্ছে রাজ্যটিকে এখন জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলোতে বিভক্ত করা হবে।

কংগ্রেস সাংসদ নবি আজাদ মনে করেন, কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের ফলে ভূস্বর্গের অশান্তির পরিবেশের পরিবর্তন হবে না। তিনি বলেন, বিজেপি অনেক পরে ক্ষমতায় এসেছে। তারা উপত্যকার আন্তর্জাতিক, ভৌগলিক সীমা এবং কৌশল বিবেচনা করে রাজ্যভাগের পদক্ষেপ ও ৩৭০ ধারা বিলোপ করেনি।

নবি আজাদ মনে করেন, শুধু সশস্ত্র নিরাপত্তা বাহিনীর মাধ্যমে শত্রুদের নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে এ দেশে প্রবেশ আটকানো অসম্ভব। এর জন্য প্রয়োজন রাজ্যের মানুষের সহায়তা। ১৯৪৭ সালের কথা মনে করিয়ে দিয়ে তিনি বলেন, তখনো লাঠি হাতে পাক অনুপ্রবেশকারীদের বিরুদ্ধে লড়াই করেছিল জম্মু-কাশ্মীরের বাসিন্দারা।

এদিকে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ৩৭০ ধারাকে কালা কানুন বলেছেন। যার বিরোধিতা করেছেন কংগ্রেস নেতা নবি আজাদ। কেন্দ্রের সমালোচনা করে তিনি বলেন, জম্মু-কাশ্মীরের ভৌগলিক ও সাংস্কৃতিক বৈচিত্র্য রয়েছে। উপত্যকায় মোট তিনটি আঞ্চল রয়েছে। এর মধ্যে জম্মুতে প্রায় ৬০ শতাংশ হিন্দু ও ৪০ শতাংশ মুসলমান। ৩৭০ ধারা বলেই বৈচিত্র্যময় জম্মু-কাশ্মীর একসঙ্গে ছিল।

 

কিউটিভি/রামিম /৫ই আগস্ট, ২০১৯ ইং/রাত ১১:৩৪

শেয়ার করুন